ছৈয়দুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ে ঈদ পূনর্মিলনী  করেরহাট আ.লীগে কামরুলের নেতৃত্ব চায় তৃনমূল নেতা-কর্মীরা  মিরসরাই আওয়ামীলীগের কাউন্সিল : সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ  মিরসরাইয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তির হামলায় বৃদ্ধা নিহত  ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে মিরসরাইয়ের তামান্না  মিরসরাইয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ড্রেন দখল চেষ্টার অভিযোগ  নামী দামি ব্রান্ডের ৫২ পণ্য বিক্রি বন্ধে আদালতের নির্দেশ  সমুদ্রের ৩৮ কি.মি গভীরে জিপির নেটওয়ার্ক মিললেও মেলে না ঘরে ভেতর  তিউনিসিয়ায় নৌকা ডুবে মৃত ৬০ জনের অধিকাংশ বাংলাদেশি  মিরসরাই আ’লীগের কাউন্সিল : আলোচনায় অর্ধ ডজন সম্ভাব্য প্রার্থী


লিডনিউজ | logo

৭ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২২শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং

মিরসরাই আওয়ামীলীগের কাউন্সিল : সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ

মিরসরাই আওয়ামীলীগের কাউন্সিল : সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ

মো. রিগান উদ্দিন : মীরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের কাউন্সিলকে ঘিরে দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে নানা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। সভাপতি পদ নিয়ে খুব একটা আলোচনা না থাকলেও সাধারণ সম্পাদকের পদ নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে। ইতোমধ্যে কয়েকজন নেতা সাধারণ সম্পাদক পদে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন। এখনো কাউন্সিলের কোন দিন-তারিখ নির্ধারণ না হলেও দলীয় কর্মীরা পছন্দের প্রার্থীকে নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ ভিবিন্ন কৌশলে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

সভাপতি পদে উপজেলা আ.লীগ বর্তমান দায়িত্বরত সভাপতি আতাউর রহমানের বিকল্প কাউকে মাঠে সক্রিয় হতে দেখা না গেলেও সম্পাদক পদে সম্ভ্যাব্য প্রার্থীর সংখ্যা প্রায় অর্ধ ডজন। তবে উত্তরজেলা আ.লীগের উপজেলা আ.লীগের কাউন্সিলের পর মীরসরাই উপজেলা আ.লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেক্ষেত্রে মীরসরাই আ.লীগের বর্তমান সভাপতি শেখ আতাউর রহমানকে উত্তরজেলা আ.লীগের নেতৃত্বে নেওয়া হলে উপজেলা আওয়ামীলীগের নতুন কমিটিতে বড় দরনের পরিবর্তন আসতে পারে এমনটিই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। অন্যদিকে, সম্পাদক পদে আলোচনায় আসা এসব প্রার্থীদের প্রায় সকলেই উপজেলার ভিবিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেয়র পদে দায়িত্বরত। তাই একই ব্যক্তি জনপ্রতিনিদিত্ব ও গুরুত্বপূর্ন রাজনৈতিক পদ দখলের বিষয় নিয়ে তৃনমূল নেতাকর্মীদের মাঝে বর্তমানে কিছুটা আলোচনা-সমালোচনার দেখা দিলেও শেষ পর্যন্ত হাইকমান্ডের সিদ্ধান্ত কি হয় সেটিই এখন দেখার বিষয়।

উপজেলা আওয়ামীলীগ সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালে ১ সেপ্টেম্বর মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। মিঠাছড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে ভোটারদের ভোটে সভাপতি শেখ আতাউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। ৩ বছর মেয়াদী ওই কমিটি গঠন হলেও পেরিয়ে গেছে ৬ বছর; এখনো অনুষ্ঠিত হয়নি কাউন্সিল। তাই বর্তমানে কাউন্সিলের জন্য আগ্রহের কমতি নেই নতুন পুরাতন প্রার্থী-সমর্থকদের মাঝে। এতে করে নড়েচড়ে বসেছে সম্ভাব্য প্রার্থীরাও।

সংশ্লিষ্ঠ সূত্রে জানা যায় সম্পাদক পদে আলোচনায় থাকা প্রার্থীরা হলেন- উপজেলার আওয়ামীলীগের বর্তমান সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হোসেন নয়ন, ইছাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা, মায়ানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার কবির নিজামী, বারইয়ারহাট পৌর মেয়র ভিপি নিজাম উদ্দিন, মীরসরাই পৌর মেয়র এম. গিয়াস উদ্দিন, দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান বিপ্লব, ধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল খায়ের মো. জাহাঙ্গীর ভূঁইয়ার নামও শোনা যাচ্ছে। অপরদিকে, তৃনমূলের মতামত পর্যালোচনায় জানা যায়, সাধারণ সম্পাদক পদে সম্ভাব্য নতুন প্রার্থীদের মধ্যে আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হোসেন নয়ন।

এনায়েত হোসেন নয়ন বলেন, বঙ্গবন্ধুর আর্দশে দীক্ষিত হয়ে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনাকালীন ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতির হাতেখড়ি হয়। স্কুল জীবন থেকে প্রায় ২৮-৩০ বছর ধরে আমার প্রিয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের রাজনৈতিক আদর্শ আমাকে অনুপ্রাণিত করে। আমি মোশাররফ হোসেনের একজন আস্থাভাজন কর্মী হিসেবে তার সানিধ্যে গিয়ে প্রিয় নেতার সকল প্রকার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের চেষ্টা করছি। যতদিন বেঁচে থাকবো প্রিয় নেতার আদর্শে রাজনীতি করে যাবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তারুণ্যে নির্ভর দেশ গড়তে এবং দলের সকল কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে মিরসরাইয়ের অভিভাবক সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপির অনুমোতিক্রমে আমি সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হবো। এক্ষেত্রে মিরসরাইয়ের ১৬ ইউনিয়ন ও দুই পৌর সভার ছাত্র-লীগ, যুবলীগ, আওয়ামীলীগের সকল নেতৃবৃন্দ্রের সহযোগীতা প্রত্যাশা করি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা আ.লীগের বর্তমান সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী বলেন, উপজেলা আ.লীগের সম্মেলন কবে-কখন হবে এবং কোন পদে কে প্রার্থী হবেন এসব বিষয়ে আমাদের একমাত্র অভিবাবক ইঞ্জি. মোশাররফ হোসেনই চূড়ান্ত সিদ্ধাত্ব নেবেন। তিনি যে সিদ্ধান্ত নেবেন ওই সিদ্ধান্তেই সকল নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থাকবো।

ইছাখালী ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা বলেন, ছাত্রজীবন থেকে দলের জন্য নিবেদীত থেকে শ্রম-মেধা দিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে থানা আওয়ামীলীগের যুগ্ন স¤পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। নেতা কর্মীদের ইচ্ছে এবার থানা আওয়ামীলীগের সম্পাদক পদে প্রতিদ্ধন্ধীতা করি। আমার নেতা ইঞ্জি. মোশাররফ হোসেন চাইলে আগামী সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্পাদক পদে প্রতিদ্ধন্ধীতা করার ইচ্ছে আছে।

বারইয়ারহাট পৌর মেয়র ভিপি নিজাম উদ্দিন বলেন, কর্মী-সমর্থকদের অনেকেই চায় আমি প্রতিদ্ধন্ধীতা করি। ব্যক্তিগতভাবে এ বিষয়ে আমি এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেইনি। সম্মেলনের ঘোষনা এলে আমার নেতা ইঞ্জি. মোশাররফ হোসেন যদি নির্দেশনা দেন তারপর আমি পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।

মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাস্টার কবির নিজামী বলেন, আওয়ামীলীগ একটি ঐতিহাসিক দল। মিরসরাই আওয়ামীলীগের মূল অভিবাবক ইঞ্জি. মোশাররফ হোসেন। আমার প্রত্যাশা দলের জন্য মঙ্গলকর সাংগঠনিক যৌগ্যতা সম্পন্ন কেউ দায়িত্ব আসুক।

মীরসরাই পৌর মেয়র গিয়াস উদ্দিন বলেন, পাইলট স্কুলে পড়ার সময় থেকে ছাত্ররাজনীতি করছি। দলের জন্য আমার ত্যাগ-তীতিক্ষা অনেক। দলের দূর্দীনে ৬ বার জেল খেটেছি। মাঠ রাজনীতি করতে গিয়ে ১৬ ইউনিয়ন ২ পৌরসভার নেতাকর্মীদের সাথে সু-সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। এখন মাঠের নেতাকর্মীরা আমাকে চায়। আমার নেতা ইঞ্জি. মোশাররফ হোসেনেরও আমার বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব আছে।

দূর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান বিপ্লব বলেন, দীর্ঘদিন ছাত্রলীগ-যুবলীগের রাজনীতি করেছি। ইউনিয়নের নেতৃত্ব দিয়েছি; এবার কর্মী-সমর্থকদের ইচ্ছেনুযায়ী উপজেলা আ.লীগের সম্পাদক পদে প্রার্থী হওয়ার লক্ষ্যে প্রস্তুতি গ্রহন করছি। ইতোমধ্যে আমি ভোটারদের সাথেও যোগাযোগ শুরু করেছি এবং ভোটররাও আমাকে সাদরে গ্রহন করে ইতিবাচক সমর্থন দিচ্ছেন।

ধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া বলেন, ছাত্রজীবন থেকেই আমি প্রগতিশীল রাজনীতি চর্চায় আগ্রহী। উপজেলা আ.লীগের সম্পাদক পদে নির্বাচিত হলে তৃনমূল নেতাকর্মীদের মতামতকে গুরুত্ব দিয়ে দলকে নতুনভাবে উজ্জীতি করে তুলবো।

উপজেলা আ.লীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান বলেন, চট্টগ্রাম উত্তরজেলা আ.লীগের কাউন্সিলের পর মীরসরাই উপজেলা আ.লীগের কাউন্সিলের অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে কাউন্সিল ও প্রার্থী নির্ধারনের সার্বিক বিষয় নির্ধারন করবেন আমাদের একমাত্র অভিবাবক আ.লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাংসদ ইঞ্জি. মোশাররফ হোসেন।

প্রসঙ্গত, এনায়েত হোসেন নয়নের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ও সামাজিক জীবন। ১৯৮২ সালে তিনি করেরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন, ১৯৯০ সালে চট্টগ্রাম সিটি কলেজ ছাত্র সংসদের এজিএস, ১৯৯৩ এবং ১৯৯৫ সালে রাজধানীর মিরপুর আইন কলেজের ভিপি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য, উপজেলা আওয়ামীলীগের মোহাম্মদ আলী-নুরুল হুদা কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯৭ সাল থেকে টানা ১৫ বছর করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি করেরহাট ইউনিয়নের পশ্চিম জোয়ার গ্রামের আলী আহম্মদ আমিন ভূঁইয়া বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। করেরহাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম রফিক আহম্মদ প্রকাশ চট্টু চেয়ারম্যানের ছোট ছেলে ও বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ সিএনসি জাফরের নাতি।


লিডনিউজ | logo

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    

সম্পাদক ও প্রকাশক:
ঠিকানা:
মুঠোফোন: ,ইমেইল:

© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

ঢাকা অফিস: ১৯২ ফকিরাপুল, (৩য় তলা),
মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

rss goolge-plus twitter facebook
DEVELOPMENT: