ছৈয়দুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ে ঈদ পূনর্মিলনী  করেরহাট আ.লীগে কামরুলের নেতৃত্ব চায় তৃনমূল নেতা-কর্মীরা  মিরসরাই আওয়ামীলীগের কাউন্সিল : সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ  মিরসরাইয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তির হামলায় বৃদ্ধা নিহত  ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে মিরসরাইয়ের তামান্না  মিরসরাইয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ড্রেন দখল চেষ্টার অভিযোগ  নামী দামি ব্রান্ডের ৫২ পণ্য বিক্রি বন্ধে আদালতের নির্দেশ  সমুদ্রের ৩৮ কি.মি গভীরে জিপির নেটওয়ার্ক মিললেও মেলে না ঘরে ভেতর  তিউনিসিয়ায় নৌকা ডুবে মৃত ৬০ জনের অধিকাংশ বাংলাদেশি  মিরসরাই আ’লীগের কাউন্সিল : আলোচনায় অর্ধ ডজন সম্ভাব্য প্রার্থী


লিডনিউজ | logo

৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

মিরসরাই বিসিক : দশ বছর পরও উৎপাদনহীন

মিরসরাই বিসিক : দশ বছর পরও উৎপাদনহীন

মো. রিগান উদ্দিন : মিরসরাই বিসিক শিল্প নগরীর কাজ শতভাগ শেষ হয়ে গেলেও এখনো উৎপাদনের জন্য কোন প্লট বরাদ্ধ দেওয়া হয়নি।

ফলে শিল্প উৎপাদনের বদলে দেশের ৭৫তম প্রকল্পটি এখন গোচারণ ভূমি হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। কবে নাগাদ প্রকল্পটির প্লট উৎপাদনের জন্য বরাদ্ধ দেওয়া হবে তার কোন সুনির্দিষ্ট বক্তব্য নেই কর্তৃপক্ষের।

এদিকে সঠিক সময়ে উৎপাদানে না যাওয়ায় বিভিন্ন প্লটে আগাছায় ভরে গেছে। নিন্মমানের কাজের কারণে ঢেবে গেছে রাস্তা। মিরসরাইয়ে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন বিসিক প্রকল্পের কাজ গ্রহনের পর থেকে নানা প্রতিবন্ধকতা যেন পিছু ছাড়ছেনা।

জানা গেছে, ৫ হাজার লোকের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ২০০৯ সালের দিকে তৎকালীন সরকারের শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া মিরসরাইয়ে বিসিক শিল্প নগরী বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেন।

পরবর্তী মিরসরাই পৌরসভার পূর্ব মঘাদিয়া মৌজায় তালবাড়িয়া রেলষ্টেশন এলাকায় জায়গা নির্ধারণ করে ২০১০-২০১১ অর্থ বছরে প্রকল্পের জন্য জমি অধিগ্রহণ করে। প্রকল্পের জন্য ১৫.৩২ একর জমির অধিগ্রহন করে মাটি ভরাট কাজও শুরু করা হয়।

প্রথম অবস্থায় প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য ২৪ কোটি ৯৫ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়। পরে তা বাড়িয়ে ২৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা করা হয়। ২০১৩ সালের শেষ দিকে প্রকল্প কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল।

কৃষি জমিতে শিল্প স্থাপনা করা যাবে না সরকারের এমন সীদ্ধান্তে থমকে যায় শিল্প নগরীরর মাটি ভরাট কাজসহ অবকাঠামো উন্নয়ন কাজ।

পরবর্তী ২০১৫ সালের মে মাসে একনেকের বৈঠকে অধিগ্রহণ জমিতে প্রকল্প বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়া হয় এবং প্রকল্পের জন্য টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়। ২০১৬ সালে ৩০ জুনের মধ্যে প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয়।

কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অবকাঠামো উন্নয়ন শুরু করলেও প্রকল্পটি বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি। প্রকল্পটিতে ৮৮টি শিল্প প্লট তৈরি করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তাদের মধ্যে বরাদ্ধ দেওয়ার কথা রয়েছে।

প্রকল্পে প্রবেশের মুখে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপর একটি ও প্রকল্পের উত্তর পাশে স্টেশন সড়কে একটি গেইট নির্মাণ করা হয়েছে। প্রকল্পের ভেতরে সড়ক কার্পেটিং ও ড্রেনেজ কাজ শেষ করা হয়েছে। তৈরি করা হয়েছে প্লটের সীমানা।

প্রকল্প এলাকায় তৈরী করা হয়েছে দ্বিতল বিশিষ্ট প্রশাসনিক ভবন। শিল্প কারখানায় বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য বিদ্যুতের খুঁটি পুঁতা ও তার লাগানো হয়েছে।

সম্প্রতি মিরসরাই বিসিক শিল্প নগরীতে গিয়ে দেখা যায়, শিল্প উৎপাদনের জন্য তৈরী করা বিভিন্ন প্লটে বেঁধে রাখা হয়েছে অর্ধশত গরু। প্লটের মাটিতে জন্মানো ঘাসে নিয়মিত গরু বাঁধেন স্থানীয়রা। প্লটে যাতায়াত করার জন্য তৈরীকৃত রাস্তায় বিভিন্ন অংশে ঢেবে গিয়ে দেখা দিয়েছে ফাটল। ড্রেনগুলোও মাটি আর বালি জমে ভরাট হয়ে আছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন রাত্রে বিসিক এলাকায় বেড়ে যায় মাদকসেবীদের উৎপাত। নির্জন এলাকা হওয়ায় প্রায় সময় মাদকসেবীদের আনাগোনা এখানে দেখা যায় বলে জানা গেছে।

মিরসারই বিসিক প্রকল্পের সাবেক প্রকল্প কর্মকর্তা কৃষ্ণ আচার্য্য জানান, মিরসরাই বিসিকের কাজ ২০১৭ সালের জুন মাসে শতভাগ শেষ হয়েছে। বর্তমানে মিরসরাই বিসিক শিল্প নগরী কোন অফিসিয়াল প্রকল্পের অধীনে নেই। তাই এটার এখন তেমন খবর রাখি না। ডিসি অফিস প্লট বরাদ্ধ দিবেন বলে জানান তিনি।


লিডনিউজ | logo

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    

সম্পাদক ও প্রকাশক:
ঠিকানা:
মুঠোফোন: ,ইমেইল:

© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

ঢাকা অফিস: ১৯২ ফকিরাপুল, (৩য় তলা),
মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

rss goolge-plus twitter facebook
DEVELOPMENT: