স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ  চলার স্বাধীনতায় সাইক্লিং  সেনা প্রত্যাহার নিয়ে ট্রাম্পের বিলম্বিত বোধোদয়!  অতিবৃষ্টিতে মাথায় হাত শরীয়তপুরের আলু চাষিদের  এমপি বাসন্তীকে নিয়ে উত্তপ্ত রামগড়!  স্ত্রীকে পিটিয়ে পিটুনি খেলেন হিরো আলম !  নৌকার প্রার্থীর গাড়িতে অস্ত্র, চালকের জেল  শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নতুন মন্ত্রিসভা হবে সফল মন্ত্রিসভা : ইঞ্জি. মোশাররফ  মিরসরাইয়ে মোশাররফের প্রচারনায় দাপুটে আওয়ামীলীগ : অন্ত:কোন্দলে ধরাশায়ী বিএনপি  মিরসরাই প্রেস ক্লাবের সাধারণ সভা : যোগ দিলেন ৬ সাংবাদিক


লিডনিউজ | logo

৯ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৩শে মার্চ, ২০১৯ ইং

দিন বদলে মিরসরাই : স্বপনবাজ ইঞ্জি. মোশাররফ এর স্বপ্ন পূরন

দিন বদলে মিরসরাই : স্বপনবাজ ইঞ্জি. মোশাররফ এর স্বপ্ন পূরন

মোহাম্মদ হাসান (কন্ট্রিবিউটিং এডিটর) :

`৩৫ হাজার একর জমিতে গড়ে উঠছে দেশের সর্ব বৃহত বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল, মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল, বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরী’

চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলা ও ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার প্রায় ৩৫ হাজার একর জমির উপর গড়ে উঠছে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল। নদীর তীরে গড়ে ওঠা সোনাগাজী-মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলকে ঘিরে মানুষের উৎসাহ-উদ্দিপনার কমতি নেই।

জেগে ওঠা চরে অর্থনৈতিক অঞ্চল ঘোষণার পর থেকে পাল্টে যাচ্ছে এ অঞ্চলের জীবনধারা। পাল্টে যাচ্ছে পরিবেশ, পাল্টে যাচ্ছে সামাজিক ও অর্থনৈতিক অবস্থা।

মীরসরাই উপজেলা সদর থেকে মাত্র ১০ কিলোমিটার দূরেই ইকোনোমিক জোনের মূল কার্যক্রম চলছে। তবে অর্থনৈতিক অঞ্চলকে ঘিরে এই দীর্ঘ পথেও উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে চোখে পড়ার মতো। রাস্তার দু’ধারে ছোট বড় প্রকল্পের সৌন্দর্য্য মুগ্ধ করবে যে কাউকে।

যে রাস্তায় সাধারণ মানুষ দিনের বেলায় চলাফেরা করতে ভয় পেত, সেখানে আজ লোকে লোকারণ্য। আর এই উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার ফলে সোনাগাজী পৌঁছে যাবে উন্নয়নের দ্বারপ্রান্তে। অঞ্চলটিকে কেন্দ্র করে সোনাগাজী অংশে তৈরি হবে বিমানবন্দর, গড়ে উঠবে কলকারখানাসহ গুরুত্বপূর্ণ সরকারি কার্যালয়।

দেশের সর্ববৃহৎ এ অর্থনৈতিক অঞ্চলটি ২০১৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। ভূমি অধিগ্রহণের পর ২০১৭ সালের জুন মাস থেকে শুরু হয় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাজ। প্রাথমিকভাবে মীরসরাই উপজেলার ইছাখালী ইউনিয়নের কয়েক হাজার একর ভূমিতে বাংলাদেশ ইকোনোমিক জোন অথোরিটির আওতাধীন বিশ্বব্যাংকের সহযোগিতায় কাজ শুরু হলেও অল্প কিছুদিনের মধ্যে সোনাগাজী এলাকায় কাজ শুরু হবে। এই অঞ্চলে কর্মসংস্থান মিলবে প্রায় দশ লাখ মানুষের। ফলে দূর হবে বেকারত্বের দুর্দশা।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আল আমিন কনস্ট্রাকশন ২৯ কোটি ৮০ লাখ ৬২ হাজার টাকার কাজ বাস্তবায়নের জন্য ২০১৭ সালের জুন মাস থেকে কাজ হাতে নিয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, ২০৩০ সালের মধ্যে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দেশে ১ কোটি বেকার লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা। যাদের জমিতে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে উঠছে সেই সব ক্ষতিগ্রস্তদের চাকরির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেয়া হবে এবং অনভিজ্ঞদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে চাকরির ব্যবস্থা করা হবে।

এই শিল্প শহরে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র, সমুদ্র বন্দর, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র, পানি শোধনাগার, আবাসিক এলাকা, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও হাসপাতালসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা নির্মাণ করা হবে। এই অর্থনৈতিক অঞ্চলকে গ্রিন জোনে উন্নীত করতে এবং সৌন্দর্য্য বর্ধন করতে পর্যায়ক্রমে ২০ লাখ গাছ রোপণ করা হবে।

৩০ হাজার একর জমির মধ্যে মীরসরাই উপজেলার এক হাজার ৩শ একর এবং সোনাগাজী উপজেলার ৭ হাজার একর জমি ইতোমধ্যে অধিগ্রহণ করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে সাড়ে ৫০০ একর ভূমিতে কাজ শুরু হয়েছে। সেখানে গড়ে উঠবে বিমানবন্দর, মিনি নৌ-বন্দর, সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র, জাহাজ নির্মাণ শিল্প, অটোমোবাইলসহ ভারি শিল্প-কারখানা। স্থাপিত হবে ২০০টি কারখানা। প্রাথমিক পর্যায়ে এর নির্মাণব্যয় ধরা হয়েছে ৮৬ হাজার কোটি টাকা।

এলাকাবাসী জানান, আমরা কল্পনাও করিনি এই চরাঞ্চলে এত বিশাল কাজ হবে। যেখানে মানুষের আনা-গোনা ছিল শুধুমাত্র চাষাবাদ আর মাছ ধরার জন্য। সেখানে এখন অনেক বড় বড় দালান শোভা পাবে। যাতায়াত ব্যবস্থা অনেক উন্নত হবে। যেখানে আমরা ছিলাম অবহেলিত আজ এই অঞ্চলকে অর্থনৈতিক অঞ্চল ঘোষণা করায় আমরাও দেশের সেরা একটি অঞ্চলে অবস্থান করছি। আর এর সবই সম্ভব হয়েছে আমাদের প্রিয় নেতা গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এর জন্য।আল্লাহ তাঁকে ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কে নেক হায়াত দান করুক।


লিডনিউজ | logo

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    

সম্পাদক ও প্রকাশক:
ঠিকানা:
মুঠোফোন: ,ইমেইল:

© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

ঢাকা অফিস: ১৯২ ফকিরাপুল, (৩য় তলা),
মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

rss goolge-plus twitter facebook
DEVELOPMENT: