মিরসরাইয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তির হামলায় বৃদ্ধা নিহত  ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে মিরসরাইয়ের তামান্না  মিরসরাইয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ড্রেন দখল চেষ্টার অভিযোগ  নামী দামি ব্রান্ডের ৫২ পণ্য বিক্রি বন্ধে আদালতের নির্দেশ  সমুদ্রের ৩৮ কি.মি গভীরে জিপির নেটওয়ার্ক মিললেও মেলে না ঘরে ভেতর  তিউনিসিয়ায় নৌকা ডুবে মৃত ৬০ জনের অধিকাংশ বাংলাদেশি  মিরসরাই আ’লীগের কাউন্সিল : আলোচনায় অর্ধ ডজন সম্ভাব্য প্রার্থী  মিরসরাইয়ে গরু চুরির অভিযোগে আটক ৩  মিরসরাইয়ে ১২৫ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিল শান্তিনীড়  মিঠাছরায় সিঙ্গার শো-রুমের উদ্বোধন


লিডনিউজ | logo

৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২১শে মে, ২০১৯ ইং

মিরসরাইয়ে দুই ‘জঙ্গি বাড়ির’ মালিকই বিএনপি নেতা !

মিরসরাইয়ে দুই ‘জঙ্গি বাড়ির’ মালিকই বিএনপি নেতা !

মো. রিগান উদ্দিন : মিরসরাইয়ে সোনাপাহাড়ের জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের অভিযানে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়ির মালিক মালিক মাজহার চৌধুরীকে আটক করেছে র‌্যাব। সোনাপাহাড়ের চৌধুরী ম্যনসন নামের ওই বাড়ির মালিক মাজহার চৌধুরী উপজেলার ৬ নম্বর ইছাখালী ইউনিয়নের ইউনিয়নের ৩ ওয়ার্ডের জমাদার গ্রামের চৌধুরী বাড়ির মৃত মাহবুর রহমানের পুত্র। আটককৃত মাজহার উপজেলা যুবদলের সাবেক যুগ্ন সম্পাদক ও বর্তমানে উত্তরজেলা যুবদলের যুগ্ন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। ইছাখালী ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি সিরাজ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

অভিযান কালে প্রেস বিপ্রিংয়ে র‌্যাব জানায়, চৌধুরী ম্যানশন নামের ৫ কক্ষের ওই বাড়িটি গত কয়েকদিন আগে এক নারী ও চার পুরুষ মিলে মালিকের কাছ থেকে ভাড়া নেয়।

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদকালে মালিক মাজহারের দাবি, ‘বাড়িটি ভাড়া দেওয়ার সময় উল্লেখিত ওই ৫ জনের কারোরই কোন পরিচয় পত্র বা অন্য কোন ডকুমেন্ট তিনি জমা রাখেননি।’ কেয়ারটেকার হকসাব বাড়িটির দেখবাল করতেন।

তবে বিষয়টি নিয়ে এলাকাবাসীর মাঝে বিরাজ করছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। স্থানীয়রা জানায়, এর আগে গত ২০১৭ সালের ৮ মার্চ মিরসরাই উপজেলা সদরের রিদোয়ান মঞ্জিলের জঙ্গি আস্তানার সন্দান পায় র‌্যাব। র‌্যাব পুলিশের দীর্ঘ অভিযানে ওই অস্তানা থেকে বিপুল পরিমান বোমা, গ্রেনেড ও জঙ্গি সরজ্ঞামাদি উদ্ধার করা হয়। রেদোয়ান মঞ্জিলের মালিক রেদোয়ানুল হক ছিলেন মিরসরাই পৌর বিএনপি’র যুগ্ন আহবায়ক। মালিক রেদোয়ানুল সে সময় দাবি করেন, একই বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি কামাল ও জসিম নামের দুই ব্যক্তি ও শিশু সহ এক নারী কাপড় ব্যবসায়ী পরিচয়ে তার কাছ থেকে বাসাটি ভাড়া নেয়। সংশ্লিষ্টদের পরিচয় পত্র বা কোন কাগজপত্র তিনি জমা নেননি। অর্থ্যাৎ পরিচয় নিশ্চিত না হয়েই তিনি তাদের কাছে বাসাটি ভাড়া দিয়েছিলেন এমনটি দাবি করেছিলেন মালিক।

এলাকাবাসীর দাবি, স্থানীয় থানা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাসা ভাড়া দেওয়ার সময় বাড়ি মালিকদের ভাড়াটিয়ার পরিচয় নিশ্চিত হতে পরিচয় পত্র ও ছবি জমা নেওয়া বাধ্যতামূলক করে। এবং পরিচয় পত্র, ছবি সহ বিস্তারিত তথ্য থানায় জমা দেয়ার জন্য একাধিকবার নির্দেশনা দিলেও বিএনপি সমর্থিত দুই মালিকের কেউই সেটি আমলে নেননি; যা সত্যিই রহস্যজনক। এছাড়া উভয় জঙ্গি আস্তানা বিএনপি নেতাদের বাড়িতে যা স্থানীয়দের উদ্ধেগে ও দু:চিন্তায় ফেলছে। তাই এসব ঘটনায় মালিকদের সংশ্লিষ্ট আছে কিনা খতিয়ে দেখার দাবি তুলেছে এলাকাবাসীরা।

ছবি : মিরসরাই পৌরসভার রেদোয়ান মঞ্জিল

উপজেলার ৫ নম্বর ওসমানপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ সভাপতি মহিউদ্দিন নিজামী জানান, উপজেলায় সন্দান পাওয়া দুই জঙ্গি আস্তানার দুটিই বিএনপি নেতার বাড়ি; উভয় মালিকের বক্তব্যও অভিন্ন। এটিই প্রমান করে বিএনপি নেতারাই জঙ্গি লালন-পালন করছেন। মালিকদের যোগসাজসে জঙ্গিদের বাড়ি ভাড়া দেওয়ার মাধ্যমে পরিকল্পিতভাবে নাশকতা চালানোর চক আঁকা হয়েছে কিনা এসব বিষয় খতিয়ে দেখার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি জোর দাবি জানাই।

আরও পড়ুন :>>>মিরসরাইয়ের সোনাপাহাড় জঙ্গি আস্তানায় দুই মরদেহ ও অস্ত্র উদ্ধার (ভিডিও)

>>>>চট্টগ্রাম আদালতে হামলার টার্গেট ছিল মিরসরাইয়ের জঙ্গিদের (ভিডিও সহ)

>>>>সপ্তাহ আগে বাড়িটি ভাড়া নেয় জঙ্গিরা : বৃদ্ধ মহিলা থাকতেন জানতো এলাকাবাসী (ভিডিও)

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী জানান, প্রতি তিনমাস পরপর ভাড়াটিয়াদের পরিচয় পত্র ও বিস্তারিত তথ্য থানায় জমা বলা হলেও সোনাপাহাড়ের ওই বাড়ির মালিক কোন তথ্যই আমাদের কাছে জমা দেয়নি। স্থানীয়দের অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।


লিডনিউজ | logo

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    

সম্পাদক ও প্রকাশক:
ঠিকানা:
মুঠোফোন: ,ইমেইল:

© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

ঢাকা অফিস: ১৯২ ফকিরাপুল, (৩য় তলা),
মতিঝিল, ঢাকা-১০০০।

rss goolge-plus twitter facebook
DEVELOPMENT: